Announcements
বিশ্বদর্পণ এবার আপনার মোবাইলে ।। গুগল প্লে ষ্টোর থেকে Biswadarpan টাইপ করে বিশ্বদর্পণ অ্যাপ ডাউনলোড করুন । বিশ্বদর্পণ নিউজ পোর্টালের জন্য সাব এডিটর , রিপোর্টার ও মার্কেটিং এগজিকিউটিভ প্রয়োজন । সত্ত্বর ছবি ও বায়োডাটা মেল করুন- info@biswadarpan.com/official@biswadarpan.com ।। যে কোন খবর ও বিজ্ঞ্যাপনের জন্য যোগাযোগ করুন -98000 -51405 বিশ্বদর্পণ এবার আপানার মোবাইলে ।। গুগল প্লে ষ্টোর থেকে Biswadarpan টাইপ করে বিশ্বদর্পণ অ্যাপ ডাউনলোড করে ২৪x৭ আপডেট থাকুন ।। Biswadarpan এর দের জন্য নতুন update । সপ্তাহের প্রতি শনিবার ও রবিবার নজর রাখুন সাহিত্যের পাতায় । শনিবার একগুচ্ছ কবিতা নিয়ে হাজির Biswadarpan । গল্প , ছোট গল্পের ভান্ডার নিয়ে রবিবাসরীয় Biswadarpan । ভোজন রসিকদের জন্য দারুন খবর । সপ্তাহের শেষে নিত্যনতুন রেসিপি Biswadarpan এ । আপনারাও পাঠাতে পারেন আপনার প্রিয় খাবারের রেসিপি । AVRO keyword এ টাইপ করুন , আর রেসিপির ছবি ও আপনার নাম স হ মেল করুন আমাদের mail id তে । MAIL ID- info@biswadarpan.com প্রতি মাসের শেষে বাছাই করা হবে আপনাদের পাঠানো রেসিপি । সেরা ২ রেসিপিকে দেওয়া হবে আকর্ষণীয় উপহার Biswadarpa এর পক্ষ থেকে । STAY TUNED BISWADARPAN . SUBSCRIBE OUR YOUTUBE CHANNEL - BISWADARPAN বিশ্বদর্পণ নিউজ পোর্টালের জন্য রাজ্য ব্যাপী সাংবাদিক/Stringer প্রয়োজন । আগ্রহীরা সত্বর ছবি ও বায়োডাটা আমাদের মেইল আই ডি-তে মেইল করুন । আমাদের মেইল আই ডি- info@biswadarpan.com উল্লেখ্যঃ- (পশ্চিম বর্ধমান , জামালপুর , বীরভুম , দক্ষিন ২৪ পরগনা , দক্ষিণ দিনাজপুর , মুর্শিদাবাদ , কলকাতা , পুরুলিয়া অগ্রগণ্য)
জেলাকে শুদ্ধ করতে মিছিল হবে, দুই কোটি টাকা খরচ করে খোল-খঞ্জনী বিতরণ অনুব্রতর
ছবি ও তথ্যঃ সৌগত মন্ডল
December 6, 2018, 1:18pm দক্ষিণবঙ্গ
বিশ্বদর্পণ ।। বীরভূমঃ এদিন বীরভূমের বোলপুরের ডাকবাংলো মাঠে মহাগুরুর উদ্দোগে কীর্তন গানের এক নতুন দিগন্তের সূচনা হলো । রথযাত্রার আগে ৪০০০ খোল ও ৮০০০ খঞ্জনী বিতরণ করলেন তৃনমূলের বীরভূম জেলা সভাপতি অনুব্রত মণ্ডল । মঞ্চকে চৈতন্য মহাপ্রভুর ছবি দিয়ে সাজানো হয়েছিল । এদিন সকাল থেকেই এখানে জনসমাগম হয়েছিল প্রায় ২০,০০০ লোকের । খোল ও খঞ্জনী বিলি করার সাথে, সাথে মিছিলের দিন ঘোষণা করা হয় । বিজেপির রথযাত্রার দিনেই প্রতিটি ব্লকে ব্লকে এই খোল, খঞ্জনী নিয়ে মিছিল করার ডাকও দিলেন অনুব্রতবাবু । এই সভায় প্রায় ২ কোটি টাকা খরচ করে খোল ও খঞ্জনি বিতরণ করা হয় । কিন্তু রথযাত্রার আগে এই খোল ও খঞ্জনী বিতরণ ও মিছিল নিয়ে বীরভূমে রাজনৈতিক মহলে বিতর্ক শুরু হয়েছে ।

বিশ্ব বরেণ্য বিভিন্ন কীর্তনীয়া এদিন মহাগুরুর অর্থাৎ অনুব্রত মণ্ডলের প্রতি করে জানালেন যে, বাংলার এই শিল্প কে নতুন করে নতুন ভাবে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার প্রয়াস এর আগে তারা দেখেননি ।

জানা গেছে, নদীয়া জেলা থেকে প্রায় দুই কোটি টাকা খরচ করে ৪০০০ খোল ও ৮০০০ খঞ্জনী কিনে এনেছে তৃনমূল কংগ্রেস । এক একটি খোলের দাম প্রায় ৪০০০ টাকা ও এক একটি খঞ্জনীর দাম ৫০০ টাকা । কিন্তু বিরোধীদের দাবি, এত টাকা দিয়ে খোল ও খঞ্জনী দেওয়া হলো সেই টাকার এলো কোথা থেকে ! এটা তো কোনো সরকারি প্রকল্প নয় । তাহলে এই টাকা এলো কোথা থেকে ? এমনই প্রশ্ন তুলেছেন বিরোধীরা । যদিও বিরোধীদের প্রশ্নের মাথা ঘামাতে চাননি বীরভূম জেলা সভাপতি অনুব্রত মণ্ডল ।

এই সভায় অনুব্রতবাবু বলেন, "বীরভূম ও বর্ধমানের ৫টি ব্লকে এক সঙ্গে খোল করতাল নিয়ে মিছিল বেরোবে । কারণ বীরভূমকে জেলা শুদ্ধ করতে হবে । আমাদের এই খোল করতাল দেওয়ার মূল কারণ হল অগ্রহায়ণ মাসে খোল করতাল নিয়ে প্রতিটি জায়গায় কীর্তন বেরোয় । কিন্তু খোলের এত দাম হওয়ায় গরিব মানুষেরা খোল কিনতে পারছেন না । তাই আমি ব্লক ও অঞ্চল সভাপতিদের আনেক আগেই বলেছিলাম তোমরা হেল্প করলে আমি এই ধরনের একটা অনুষ্ঠান করতে পারি । ওনারা করলো । তাই এইরকম একটা অনুষ্ঠান করতে পারলাম । আগামী ১৪ তারিখ প্রত্যেক ব্লকে, গ্রামে মন্দিরে খোল ও খঞ্জনী নিয়ে মিছিল বের হবে আমাদের "।

কিন্তু ১৪ তারিখ বিজেপি রথ বের করছে । এই প্রসঙ্গে অনুব্রতবাবু বলেন, "কার কী বেরোবে আমার ওইসব দেখে লাভ নেই । কার কী বেরোবে, কখন মরা যাবে তার দায় আমি নেবো নাকি । এখানে অনেক শ্মশান আছে । কোন মরা কোন শ্মশানে যাবে তার দায় আমার নয় তো । তারাপীঠে শ্মশান আছে, বোলপুরে আছে, সুরতেশ্বরে আছে, উদ্ধারণপুরে শ্মশান আছে, কংকালীতলায় শ্মশান আছে আছে । তবে খোল ও খঞ্জনী নিয়ে মিছিল হবে ১৪ তারিখ ।"

অনুব্রতবাবু এই অনুষ্ঠানে খুদে কীর্তন শিল্পীর গানের তালে, তালে হাত নাড়াতেও দেখা যায় । এছাড়াও এই অনুষ্ঠানে বিভিন্ন নামিদামি কীর্তন শিল্পী উপস্থিত ছিলেন, যেমন, সুমন ভট্টাচার্য, দিব্যেন্দু মণ্ডল ইত্যাদি ।
   

Leave a Comment